রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০
কালবেলা প্রতিবেদক
প্রকাশ : ১৯ মে ২০২৩, ০৯:২৯ এএম
প্রিন্ট সংস্করণ

আরও দু-তিন দিন কালবৈশাখী ও শিলাবৃষ্টির শঙ্কা

বর্ষা মৌসুমের আগে বেড়েছে বৃষ্টির প্রবণতা। আগামী দু-তিন দিন সারা দেশে বৃষ্টির সম্ভাবনার কথা জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। সেইসঙ্গে কালবৈশাখী ও শিলাবৃষ্টির শঙ্কার কথাও জানিয়েছে সংস্থাটি। ঝড়ের আশঙ্কায় ৫ জেলার নদীবন্দরে নৌ হুঁশিয়ারি সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, রংপুর, রাজশাহী, ময়মনসিংহ, ঢাকা, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম এবং সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা অথবা ঝোড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেইসঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে শিলাবৃষ্টি হতে পারে।

আবহাওয়াবিদ এ কে এম নাজমুল হক বলেন, খুলনা, বরিশাল, পটুয়াখালী, নোয়াখালী, চট্টগ্রাম ও কক্সবাজারের ওপর দিয়ে পশ্চিম ও উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে ঘণ্টায় ৬০ থেকে ৮০ কিলোমিটার বেগে অস্থায়ীভাবে ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। সেইসঙ্গে বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সে কারণে এসব এলাকার নদীবন্দরগুলোকে ২ নম্বর নৌ হুঁশিয়ারি সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

তিনি বলেন, দেশের অন্য এলাকায় পশ্চিম ও উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫ থেকে ৬০ কিলোমিটার বেগে অস্থায়ীভাবে ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। সেইসঙ্গে বৃষ্টি ও বজ্রসহ বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। এসব এলাকার নদীবন্দরগুলোতে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

সারা দেশে বৃষ্টির সম্ভাবনা থাকলেও কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে শিলাবৃষ্টি হতে পারে। নাজমুল হক বলেন, আরও ২-৩ দিন বৃষ্টির প্রবণতা এমনই থাকতে পারে। তার পরে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ কমে আসবে। সারা দেশে দিনের তাপমাত্রা হ্রাস পেতে পারে। তাবে রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের ডিউটি অ্যাসিস্ট্যান্ট মো. খলিলুর রহমান জানান, গতকাল সকাল ৬টা পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় নেত্রকোনায় সর্বোচ্চ ৮৯ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। এই সময় ঢাকায় ৫০ মিলিমিটার, তাড়াশে ৪৯, টাঙ্গাইলে ৪৬, বগুড়ায় ৪৪, শ্রীমঙ্গলে ৪৩, হাতিয়ায় ৪২, সন্দ্বীপে ৪০, রামগতিতে ৩৯, চুয়াডাঙ্গায় ৩৫, ময়মনসিংহে ৩১, ভোলায় ২৩, রাজশাহীতে ২০, সিলেট ও খুলনায় ১৯, রংপুরে ১৮, চট্টগ্রামে ১২ ও বরিশালে ১০ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।

রোজার ঈদের সময় কয়েকদিন বাদ দিয়ে রোজার মাসে এবং মে মাসের এই কদিনও তাপপ্রবাহের অসহনীয় গরমে হাঁসফাঁস করেছে মানুষ। পারদ কখনো ৪০ ডিগ্রি ছুঁইছুঁই করেছে, কখনো বা ছাড়িয়েও গেছে। এরপর গত ১৪ মে ঘূর্ণিঝড় ‘মোখা’র প্রভাবে ঢাকায় বাতাস বইলেও বৃষ্টি হয়নি। ফলে গরমও কমেনি খুব একটা। গত মঙ্গলবার সন্ধ্যার আগে ঝোড়ো হাওয়ার পর সামান্য বৃষ্টি হয়েছিল। আবহাওয়া অধিদপ্তরের পূর্বাভাস ছিল গত বুধবার সকাল ৬টা থেকে পরের ২৪ ঘণ্টায় ঢাকা-চট্টগ্রামসহ দেশের ছয় বিভাগে বৃষ্টি হতে পারে। হয়েছেও তাই।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

ঘুষ-দুর্নীতির আখড়া জাজিরার বড়কান্দি ইউনিয়ন ভূমি অফিস

মীন রাশিতে কাজে সফল হওয়ার দিন আজ

২৭ ফেব্রুয়ারি : নামাজের সময়সূচি

মঙ্গলবার রাজধানীর যেসব এলাকায় যাবেন না

কী ঘটেছিল ইতিহাসের এই দিনে

প্যারিসে ভাষা দিবস উপলক্ষে পঞ্চ কবির গানের সন্ধ্যা

বাবাকে কুপিয়ে জখম, ছেলে গ্রেপ্তার

আধিপত্য বিস্তারে দুই গ্রুপের ককটেল বিস্ফোরণ, আহত ৩

পথ হারানো ৩১ দর্শনার্থীকে উদ্ধার করল পুলিশ

শিক্ষা সফরে মদপান, দুই শিক্ষক সাময়িক বরখাস্ত

১০

মিয়ানমারে সরকার গঠন করতে যাচ্ছে বিদ্রোহীরা!

১১

রাতের ঢাকায় নতুন মাদক

১২

বাংলাদেশ অলিম্পিক এসোসিয়েশন এর কার্যনির্বাহী কমিটির সভা অনুষ্ঠিত

১৩

রংপুরকে উড়িয়ে ফাইনালে লিটনের কুমিল্লা

১৪

যুগান্তরের অবদান চির স্মরণীয় হয়ে থাকবে

১৫

ভিকারুননিসার শিক্ষক মুরাদ গ্রেপ্তার

১৬

যৌন হয়রানির অভিযোগে ভিকারুননিসা শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলা

১৭

করোনায় আক্রান্ত ডিবি প্রধান হারুন

১৮

‘বঙ্গবন্ধু বিচ’ নামকরণের প্রস্তাব বাতিল

১৯

বর্ণাঢ্য আয়োজনে চবি ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের নবীনবরণ

২০
X