জাকির হোসেন লিটন, ঢাকা এবং আবুল হাসান ও মহিন উদ্দিন রিপন, গাজীপুর
প্রকাশ : ২৫ মে ২০২৩, ০৯:৩৪ এএম
প্রিন্ট সংস্করণ

গাজীপুরে ইসির অ্যাসিড টেস্ট

গাজীপুরে ইসির অ্যাসিড টেস্ট

বহুল আলোচিত গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আজ বৃহস্পতিবার ভোট গ্রহণ হবে। বিএনপি নেতৃত্বাধীন সরকারবিরোধী জোট এ নির্বাচনে সরাসরি অংশ না নিলেও সবার নজর এখন গাজীপুরে। জাতীয় নির্বাচনের আগে এই ভোটের পরিবেশ, গ্রহণযোগ্যতা এবং ফলাফল আগামীর সম্ভাব্য আন্দোলনে নতুন মাত্রা যোগ করতে পারে। সেজন্য শুধু রাজনৈতিক দলই নয়, বিদেশি কূটনীতিকদের চোখও এখন গাজীপুর সিটির ভোটে। তারা নির্বাচন পরিস্থিতি গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছেন। সেজন্য জাতীয় নির্বাচনের আগে ভোটকে নিজেদের ‘অ্যাসিড টেস্ট’ হিসেবে দেখছে নির্বাচন কমিশনও। কমিশন এই নির্বাচনকে সংসদ নির্বাচনের স্টেজ রিহার্সেল মনে করছে। তারা সিটির ভোট সুষ্ঠু করে আগাম পরীক্ষা দিতে চায়। বিষয়টি বিবেচনা করে গাজীপুরসহ পাঁচ সিটি করপোরেশনের ভোটকে বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছে।

নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা গেছে, আয়তনের দিক থেকে দেশের বৃহৎ এ সিটি করপোরেশন নির্বাচন উপলক্ষে নির্বাচন কমিশন এরই মধ্যে তার সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে। প্রিসাইডিং অফিসাররা নির্বাচনী সামগ্রী নিয়ে কেন্দ্রে কেন্দ্রে অবস্থান করছেন। প্রতিটি কেন্দ্রে মোতায়েন করা হয়েছে পর্যাপ্ত আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা টহল দিতে শুরু করেছেন। আজ সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) এ ভোট গ্রহণ চলবে। এতে নির্ভয়ে ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারবেন বলে প্রত্যাশা ভোটারদের। নির্বাচন বিশ্লেষকদের মতে, এ নির্বাচনে সবকিছু ছাপিয়ে আলোচনার কেন্দ্রে সদ্য বহিষ্কৃত মেয়র জাহাঙ্গীর আলমের মা স্বতন্ত্র প্রার্থী জায়েদা খাতুন ও আওয়ামী লীগ সমর্থিত নৌকার প্রার্থী আজমত উল্লা খান। গাজীপুর সিটির বাসিন্দারা ‘নগরপিতা’ নাকি ‘নগরমাতা’ কাকে বেছে নিচ্ছেন, সেটি চূড়ান্ত হচ্ছে আজ।

নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. ফরিদুল ইসলাম বলেছেন, গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচন নিয়ে সারা দেশের আগ্রহ রয়েছে। নির্বাচন কমিশনের নির্দেশনা অনুযায়ী ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠানের জন্য সব ধরনের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের নিয়ে নিরাপত্তা বলয় সৃষ্টি করা হয়েছে।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মোল্লা নজরুল ইসলাম বলেছেন, সবাই গাজীপুর নির্বাচনের দিকে তাকিয়ে আছেন। এখানে সুষ্ঠু ভোট হবে—সেটি আমরা দেখিয়ে দিতে চাই।

এদিকে পাঁচটি সিটি করপোরেশন নির্বাচনের তপশিল ঘোষণা হলেও গাজীপুর ছাড়া বাকি চারটির ব্যাপারে তেমন কোনো আগ্রহ নেই পর্যবেক্ষকদের। গাজীপুর সিটি নির্বাচন নিয়েই ভাবনা সবার। বিএনপি জোট সরাসরি নির্বাচনী মাঠে না থাকলেও

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ এ নির্বাচনকে নিজেদের প্রেস্টিজ ইস্যু হিসেবে দেখছে। সেজন্য নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী আজমত উল্লা খানের বিজয় নিশ্চিত করতে যা যা করার সবই করছেন ক্ষমতাসীন দলটির নীতিনির্ধারকরা। অন্যদিকে নৌকার শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে মাঠে রয়েছেন আওয়ামী লীগ ও গাজীপুর সিটির সদ্য বহিষ্কৃত মেয়র জাহাঙ্গীর আলমের মা স্বতন্ত্র প্রার্থী জায়েদা খাতুন। এরই মধ্যে তিনি ভোটারদের মধ্যে অবস্থান তৈরি করে নিয়েছেন। তার ছেলে জাহাঙ্গীর আলম বহিষ্কৃত হলেও তার প্রতি নীরব সমর্থন রয়েছে স্থানীয়দের। এ ছাড়া নির্বাচনী মাঠে আরও রয়েছেন টঙ্গীর সরকার পরিবারের সন্তান ও বিএনপি নেতা সরকার শাহনূর ইসলাম রনি। জাতীয় পার্টি ও ইসলামী আন্দোলনেরও একজন করে মেয়র প্রার্থী রয়েছেন।

নির্বাচন কমিশন সূত্র জানায়, জাতীয় নির্বাচনের ঠিক আগ মুহূর্তে এ নির্বাচন নিয়ে যাতে কোনো ধরনের বিতর্কের মুখে পড়তে না হয়, সে ব্যাপারে বেশ সতর্ক রয়েছে কমিশন। ফলে সিটি নির্বাচন অবাধ, নিরপেক্ষ ও গ্রহণযোগ্য করা নিয়ে বেশ তৎপর ইসির কর্মকর্তারা। তবে ক্ষমতাসীনদের অসহযোগিতায় বারবার বিব্রতকর অবস্থায় পড়তে হয় কমিশনকে। সিটি নির্বাচনে সরকার প্রণীত আইন কোনোভাবেই মানছেন না দলটির প্রার্থী ও নেতাকর্মীরা। বারবার সতর্ক করার পরও একের পর এক আচরণবিধি ভঙ্গ করার অভিযোগ ওঠে তাদের বিরুদ্ধে। এ বিষয়ে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সহযোগিতা চেয়ে দলটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে চিঠি দেওয়া হলেও তা তেমন কাজে আসেনি। ফলে বিষয়টি নিয়ে উদ্বিগ্ন ইসির কর্মকর্তারা। তবু এ নির্বাচনকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছে ইসি।

সূত্র বলছে, এ নির্বাচনকে কেন্দ্র করেই আগামীতে রাজনীতির মাঠের পরিস্থিতি নির্ধারিত হতে পারে। নির্বাচন নিয়ে কোনো ধরনের অনিয়মের অভিযোগ উঠলে তা লুফে নিতে পারে সরকারবিরোধীরা। এতে নির্বাচন কমিশনের সক্ষমতার বিষয়ে প্রশ্ন তুলে দেশ-বিদেশে নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিতে চলমান আন্দোলন আরও জোরদার হতে পারে। আস্থা ও গ্রহণযোগ্যতা হারাতে পারে নির্বাচন কমিশন, যা জাতীয় নির্বাচন আয়োজনে বিঘ্ন সৃষ্টি করতে পারে। এ ছাড়া আগামী সংসদ নির্বাচনের আগে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া পাঁচ সিটি নির্বাচনের মধ্যে গাজীপুরের নির্বাচনেই তীক্ষ্ণ দৃষ্টি কূটনীতিকদের। অন্য চার সিটির তুলনায় এ নির্বাচনেই শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বিতা হতে পারে বলে মনে করছেন তারা। ফলে জাতীয় নির্বাচনের আগে এই ভোটকে কেন্দ্র করে যাতে কোনো ধরনের বিতর্ক সৃষ্টি না হয়, সেজন্য সব ধরনের চেষ্টা করা হচ্ছে ইসির তরফ থেকে।

এ নির্বাচনকে নিজেদের অ্যাসিড টেস্ট হিসেবে উল্লেখ করে সম্প্রতি পুলিশ ও প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে এক বৈঠকে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল বলেছেন, গাজীপুরে আমরা কোনোভাবেই গাইবান্ধা মডেলের নির্বাচন চাই না। এটি আমাদের ইমেজের প্রশ্ন। সরকারের চাওয়া আর ইসির চাওয়া এক না-ও হতে পারে। এটি সবাইকে মনে রাখতে হবে। এ সময় সুষ্ঠু ভোট আয়োজনে সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ্বাস দেন পুলিশ ও প্রশাসনের কর্তারা।

কেন্দ্রে কেন্দ্রে ৪৬ ধরনের ভোট সামগ্রী : আয়তনের দিক থেকে দেশের সর্ববৃহৎ গাজীপুর সিটি করপোরেশনের (জিসিসি) নির্বাচন উপলক্ষে গতকাল ৪৮০টি ভোটকেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের কাছে ইভিএম মেশিনসহ ৪৬ ধরনের সামগ্রী বিতরণ কার্যক্রম শুরু করে কমিশন। গাজীপুর সিটি নির্বাচনের সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা এইচ এম কামরুল ইসলাম জানান, ১১ লাখ ৭৯ হাজারেরও বেশি ভোটারের জন্য ৪৮০টি কেন্দ্রের ৩ হাজার ৪৯৭টি কক্ষ স্থাপন করা হয়েছে। এসব কেন্দ্রে ব্যবহার করার জন্য ৫ হাজার ২৪৬টি ইভিএম মেশিন প্রস্তুত রাখা হয়েছে। প্রতি কেন্দ্রে একজন করে ৪৮০ জন ট্রাবল শুটার, প্রতি দুই কেন্দ্রে একজন করে মোট ২৪০ জন (ভ্রাম্যমাণ) টেকনিক্যাল এক্সপার্ট, ১৪ জন সহকারী প্রোগ্রামার এবং ৪ জন থাকবেন প্রোগ্রামার। যাতে কোনো ইভিএম মেশিনে সমস্যা দেখা দিলে তা দ্রুত সমাধান করা যায়। প্রতি কেন্দ্রে একটি এবং কক্ষে একটি করে সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে। তিনি জানান, গাজীপুর জেলা প্রশাসন কার্যালয় চত্বর, শহরের কাজী আজিম উদ্দিন কলেজ এবং জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বুধবার ৪৬ আইটেমের সামগ্রী বিতরণ করা হয়। কেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রিসাইডিং, সহকারী প্রিসাইডিং অফিসাররা এসব সামগ্রী বুঝে নেন।

মেয়র পদে লড়ছেন যারা : নৌকা প্রতীকে আওয়ামী লীগের অ্যাডভোকেট আজমত উল্লা খান, জাতীয় পার্টির প্রার্থী (লাঙ্গল প্রতীক) সাবেক সচিব এম এম নিয়াজ উদ্দিন, হাতপাখা প্রতীকে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের গাজী আতাউর রহমান, গোলাপ ফুল প্রতীকে জাকের পার্টির রাজু আহাম্মেদ ও মাছ প্রতীকে গণফ্রন্টের আতিকুল ইসলাম। এ ছাড়া স্বতন্ত্র হিসেবে মেয়র পদে টেবিল ঘড়ি প্রতীকে জায়েদা খাতুন (সাবেক মেয়র জাহাঙ্গীর আলমের মা), ঘোড়া প্রতীকে হারুন-অর রশীদ ও হাতি প্রতীকে সরকার শাহনূর ইসলাম লড়ছেন।

ইসি সূত্র জানায়, গাজীপুরের প্রায় এক-তৃতীয়াংশ কেন্দ্রকে এরই মধ্যে ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করেছে নির্বাচন কমিশন। এসব কেন্দ্রে সুষ্ঠু ভোট আয়োজনে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অতিরিক্ত সদস্য মোতায়েন থাকবেন।

নির্বাচন উপলক্ষে গতকাল বিকেলে নির্বাচনী পরিবেশ পর্যবেক্ষণ ও জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটদের সঙ্গে মতবিনিময় করেছেন নির্বাচন কমিশনার রাশিদা সুলতানা। এ সময় তিনি বলেন, সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য নির্বাচন কমিশন বদ্ধপরিকর। কোনো অনিয়ম বা ব্যত্যয় হলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তিনি আরও বলেন, নির্বাচন নিয়ে নির্বাচন কমিশনের কোনো চাপ নেই। ভোট গ্রহণ আমাদের কাজ, আমরা কাজ করে যাচ্ছি। ভোটারদের উদ্দেশে তিনি বলেন, আপনারা নির্ভয়ে ভোটকেন্দ্রে আসুন। আমরা চাই, আপনাদের উপস্থিতিতে একটি অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন হোক। কোনো ধরনের ব্যত্যয় হওয়ার সুযোগ নেই।

ইসির কর্মকর্তারা বলছেন, জাতীয় নির্বাচনের আগে এই ভোটকে কেন্দ্র করে যাতে কোনো ধরনের বিতর্ক সৃষ্টি না হয়, সেজন্য সব ধরনের চেষ্টা করা হচ্ছে। যদিও বিশ্লেষকরা বলছেন, সরকার না চাইলে কমিশনের একার পক্ষে সুষ্ঠু নির্বাচন করা অসম্ভব।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সুশাসনের জন্য নাগরিক-সুজন সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদার কালবেলাকে বলেন, জাতীয় নির্বাচনের আগে অনুষ্ঠিত এ সিটি নির্বাচন ইসির জন্য নিঃসন্দেহে একটি অগ্নিপরীক্ষা। যদিও ইসির প্রতি রাজনৈতিক দলগুলোর আস্থা নেই, তার পরও তারা ভোটের মাঠে পুরো ক্ষমতা প্রয়োগ করলে কিছুটা হলেও সুষ্ঠু ভোট করে তাদের আন্তরিকতার প্রমাণ দিতে পারে।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

এসিআইয়ে ক্যারিয়ার গড়ার সুযোগ, কর্মস্থল ঢাকা

আ.লীগ মানুষের কল্যাণে রাজনীতি করে : এলজিআরডি প্রতিমন্ত্রী

ছাত্রলীগ নেত্রীর অন্তরঙ্গ ভিডিও ভাইরাল

খালেদা জিয়ার আরোগ্য কামনায় মোহাম্মদপুরে দোয়া মাহফিল 

খালেদা জিয়া এখন জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে : ফখরুল

মতিউরের দুর্নীতি তদন্তে দুদকের ৩ সদস্যের টিম গঠন

থানচি ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা শিথিল

হোটেলে নারী পুলিশের সঙ্গে ধরা, ডেপুটি সুপার হলেন কনস্টেবল

বিশ্বকাপে আফগানদের জয় আর অঘটন নয়, সাধনার ফল!

হাসপাতালে যাওয়ার পথে ট্রাকচাপায় বৃদ্ধের মৃত্যু

১০

স্নাতক পাসে ব্র্যাক ব্যাংকে চাকরি

১১

বিএনপি স্বাধীনতাবিরোধীদের তোষণ না করলে দেশ আরও এগিয়ে যেত : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

১২

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স চতুর্থ ও ডিগ্রি দ্বিতীয় বর্ষের ২ পরীক্ষা স্থগিত

১৩

বুয়েটে কেন্দ্রীয় মন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন

১৪

অর্জনে পরিপূর্ণ আওয়ামী লীগের ৭৫ বছর

১৫

প্রধানমন্ত্রীর জন্য আনারস পাঠালেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী

১৬

‘আওয়ামী লীগের সফল এবং গৌরবময় পথচলার ৭৫ বছর’

১৭

বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যুবককে হত্যা

১৮

ইসরায়েলি বন্দরে যৌথ অভিযান, চার জাহাজে হামলা

১৯

স্বাধীনতা হলো আওয়ামী লীগের সবচেয়ে বড় প্রাপ্তি : রেলমন্ত্রী

২০
X