দুলাল হোসেন
১৭ মে ২০২৩, ০৯:০০ এএম
প্রিন্ট সংস্করণ

গাছ রোপণ ও বিধিমালা মেনে ভবন নির্মাণের পরামর্শ

গ্রামাঞ্চলের তুলনায় ঢাকা শহরের তাপমাত্রা অনেক বেশি। অতিরিক্ত গরমের কারণে মানুষ ডায়রিয়া, পেটের পীড়া, হিটস্ট্রোকসহ বিভিন্ন রোগব্যাধিতে আক্রান্ত হচ্ছেন। গরমে মানুষের জীবন দুর্বিষহ হয়ে উঠেছে। এ অবস্থায় ঢাকা শহরের হিট আইল্যান্ড প্রতিরোধে বেশ কিছু পদক্ষেপ গ্রহণের উদ্যোগ নিচ্ছে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক)। এর মধ্যে রয়েছে ভবন ও রাস্তার আশপাশে গাছ লাগানো, ঢাকার খাল ও পুকুর উদ্ধার এবং প্রকল্প গ্রহণ করে ৬ লাখ গাছ রোপণ করা।

দেশের পরিকল্পনাবিদরা এ উদ্যোগ বাস্তবায়নের পরামর্শ দিয়ে বলেছেন, গ্রামীণ অঞ্চল থেকে শহর অঞ্চলে তাপমাত্রা খুব বেশি থাকে। শহরের বেশি তাপমাত্রাকে আরবান হিট আইল্যান্ড বলা হয়ে থাকে। হিট আইল্যান্ডের পেছনে নানা কারণ রয়েছে। হিট আইল্যান্ডের প্রভাব কমাতে ভবনের চারপাশে ও ছাদে গাছ লাগানো, খেলার মাঠ ও পার্ক তৈরি, জলাশয়, পুকুর, লেক ও খাল সংরক্ষণ করতে হবে এবং ইমারত বিধিমালা মেনে ভবন নির্মাণ করতে হবে।

ঢাকার বিশদ অঞ্চল পরিকল্পনা (ড্যাপ) ২০২২-২০৩৫-এর প্রজ্ঞাপন গত বছরের ২৩ আগস্ট প্রকাশ করা হয়েছে। প্রণীত ড্যাপে ১ হাজার ৫২৮ বর্গকিলোমিটার এলাকার আবাসিক, বাণিজ্যিক ও শিল্প এলাকাসহ কৃষি, জলাশয়, বনাঞ্চল, উন্মুক্ত স্থান, পার্ক, স্কুল-কলেজ নির্মাণ, যোগাযোগ, বন্যা প্রবাহ এলাকাগুলো চিহ্নিত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের কথা বলা হয়। প্রণীত ড্যাপে ঢাকা শহরের হিট আইল্যান্ড প্রতিরোধে বেশ কিছু পদক্ষেপ গ্রহণের প্রস্তাব করা হয়েছে, যা সংশ্লিষ্ট সংস্থা বা দপ্তর এগুলো বাস্তবায়ন করবে।

ঢাকার বিশদ অঞ্চল পরিকল্পনার (ড্যাপ) প্রকল্প পরিচালক ও রাজউকের প্রধান নগর পরিকল্পনাবিদ মো. আশরাফুল ইসলাম কালবেলাকে বলেন, ঢাকার তাপমাত্রা বেড়েই চলছে। গত ৫-৬ বছরে কোনো কোনো এলাকায় ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা বেড়েছে। তাপমাত্রা বাড়ার প্রধান কারণ হচ্ছে ঢাকা শহর ৮৫ শতাংশ কংক্রিটে আবৃত হয়েছে। শহরে যে পরিমাণ গাছপালা থাকার দরকার, তা নেই। তাই ঢাকা শহর হিট আইল্যান্ডে পরিণত হয়ে গেছে। এটি রোধ করতে না পারলে ক্রমাগত তাপ বাড়তে থাকবে। এক সময় ঢাকা শহর বসবাস অযোগ্য হয়ে যাবে। শহরের তাপমাত্রা যেন না বাড়ে, সেজন্য ড্যাপে কিছু প্রস্তাব রাখা হয়েছে। প্রস্তাবের মধ্যে রয়েছে—৬ লাখ গাছ লাগানো, সিটি করপোরেশনের যেসব পুকুর রয়েছে, সেগুলো সংস্কার করা, যেসব এলাকায় তাপ বেড়ে গেছে, সেখানে প্রকল্পের আওতায় গাছ লাগানো। রাজউক, ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনসহ সংশ্লিষ্ট সংস্থাকে এগুলো বাস্তবায়ন করতে হবে।

ড্যাপে হিট আইল্যান্ড সম্পর্কে বলা হয়েছে, সাধারণত গ্রামীণ এলাকার তুলনায় নগর এলাকায় বেশি তাপমাত্রা পরিলক্ষিত হয়। এ বিষয়টিকে আরবান হিট আইল্যান্ড বলা হয়। হিট আইল্যান্ডের প্রধান কারণ হচ্ছে নগর এলাকায় স্থাপিত অবকাঠামো (রাস্তা ও সুউচ্চ ভবন) সূর্য থেকে আলোকরশ্মি শোষণ করে। এতে অবকাঠামোর পৃষ্ঠতল বেশি তাপ ধারণ করে ফেলে। দ্বিতীয়ত, মানুষের তৈরি শিল্পকারখানা, গাড়ির ধোঁয়ার মাধ্যমে নগর এলাকায় তাপ বৃদ্ধি পায়। তৃতীয়ত, নগর এলাকায় গাছপালার স্বল্পতা।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের নগর ও অঞ্চল বিভাগের অধ্যাপক পরিকল্পনাবিদ ড. আদিল মোহাম্মদ খান কালবেলাকে বলেছেন, যেসব এলাকায় বিল্ডিং বেশি, সবুজ গাছপালা থাকে, সেখানে তাপমাত্রা বেশি থাকে। হিট আইল্যান্ডের প্রভাব থেকে বাঁচতে আমাদের বেশ কিছু কাজ করতে হবে। যেমন দুটি ভবনের মাঝখানে যে পরিমাণ ফাঁকা জায়গা রাখার কথা, তা রাখতে হবে এবং সেই ফাঁকা জায়গায় গাছপালা লাগাতে হবে। এ সবুজায়ন আমাদের শহরের তাপমাত্রা কমাতে এবং আমাদের গ্রাউন্ড ওয়াটার রিচার্জে সাহায্য করবে। রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষকে (রাজউক) এ কাজে নজরদারি বাড়াতেই হবে। তিনি বলেন, আমাদের রাস্তার আশপাশের জায়গা, খেলার মাঠের আশপাশের জায়গাগুলোতে গাছপালা রোপণ করতে হবে। এর পাশাপাশি শহরের খালগুলোকে উদ্ধার করে পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা রাখতে হবে। এ ছাড়া শহরের জলাশয় রাখতে হবে। সবুজায়নের মাধ্যমে শহরের তাপমাত্রা কমে আসবে। ড্যাপে প্রণীত হিট আইল্যান্ডের বিষয়ে যেসব সুপারিশ করা হয়েছে, সেগুলো বাস্তবায়ন করা গেলে তখন শহরের তাপমাত্রা আস্তে আস্তে কমবে।

ড্যাপে বলা হয়েছে, ঢাকা শহরের বিভিন্ন আবাসিক এলাকায় হিট আইল্যান্ডের ব্যাপক প্রভাব রয়েছে। রমনা, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও বুয়েট এলাকায় প্রচুর গাছপালা, পার্ক ও অনেক খোলা জায়গা থাকায় এসব এলাকার তাপমাত্রা থেকে মতিঝিল, মগবাজার, কারওয়ান বাজারসহ অনেক এলাকার তাপমাত্রা অনেক বেশি থাকে।

হিট আইল্যান্ডের প্রভাব হ্রাস করার যেসব কৌশল রয়েছে, তার মধ্যে বেশি পরিমাণ গাছপালা রোপণ একটি। সবুজ গাছপালা নগর এলাকায় শীতল ও গরমের মধ্যে ভারসাম্য অর্জনের মাধ্যমে হিট আইল্যান্ড কমিয়ে ফেলতে পারে। এ বিষয়ে বেশ কিছু সুপারিশ করা হয়েছে। এসব সুপারিশের মধ্যে রয়েছে, হিট আইল্যান্ডের প্রভাব কমাতে নির্মাণ বিধিমালায় অবশ্যই গাছপালা রোপণের শর্ত দিতে হবে। যেসব উপাদান তাপ বাড়াতে ভূমিকা রাখে, তা বন্ধ করতে হবে। যে কোনো রাস্তা নির্মাণকালে গাছপালা লাগানো বাধ্যতামূলক করতে হবে। যেসব এলাকায় হিট আইল্যান্ডের প্রভাব বেশি, সেখানে প্রকল্প গ্রহণের মাধ্যমে গাছপালা রোপণ করতে হবে। ড্যাপে প্রস্তাবিত জলাশয়, পুকুর, লেক, খাল ও নদী সংরক্ষণ করতে হবে। পার্ক ও খেলার মাঠের ব্যবস্থা করতে হবে। বেসরকারি আবাসিক প্রকল্প-সংক্রান্ত বিধিমালায় গাছপালা রোপণের শর্ত দিতে হবে।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

আজ শেষ হচ্ছে মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই

পিরোজপুরে ১০ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল যে কারণে

নেত্রকোনা-৩ আসনে অসীম কুমার উকিলসহ ৭ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা

মিরপুরেও কি হবে সিলেটের মতো স্পোর্টিং উইকেট?

মনোনয়ন টেকাতে হাইকোর্টে যাবেন সালাহউদ্দিন

কুমিল্লায় মিষ্টি আলুর ভালো ফলনের আশা

নোয়াখালীতে বিকল্পধারার মহাসচিব ও নৌকার প্রার্থীসহ ১৮ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল

জোরালো হলো অভিষেক-ঐশ্বরিয়ার বিচ্ছেদের গুঞ্জন

সুনামগঞ্জে আমনের বাম্পার ফলন, ভালো দামের প্রত্যাশা

ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সে নিয়োগ

১০

যেখানে সুখ সেখানেই উষ্ঠা খাই আমি : মাহি

১১

রিজভীর নেতৃত্বে উত্তরায় মহিলা দলের মিছিল পিকেটিং 

১২

অবরোধ সফলে রাজধানীর আসাদগেটে স্বেচ্ছাসেবক দলের মিছিল

১৩

গাজায় ৩.৪ মিলিয়ন ডলারের সাহায্য পাঠাল তুরস্কের রেড ক্রিসেন্ট

১৪

বগুড়া-৩ আসনে ৭ স্বতন্ত্র প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল

১৫

অভিজ্ঞতা ছাড়াই পপুলার ফার্মাসিউটিক্যালসে চাকরি

১৬

১২ দিন স্মৃতিসৌধে যেতে মানা

১৭

ফেলিক্সের গোলে অ্যাথলেটিকোকে হারাল বার্সেলোনা

১৮

শেখ মনির ৮৫তম জন্মদিন আজ

১৯

৪ ডিসেম্বর : নামাজের সময়সূচি

২০
X