শাহ আলী জয়, উল্লাপাড়া (সিরাজগঞ্জ)
প্রকাশ : ২০ মে ২০২৩, ১১:২৪ পিএম
অনলাইন সংস্করণ

পাঁচ বিঘা জমি বিক্রি করে একটি রেডিও! খবর শুনতেন ১০ গ্রামের মানুষ

পাঁচ বিঘা জমি বিক্রি করে একটি রেডিও! খবর শুনতেন ১০ গ্রামের মানুষ

আলতাফ হোসেন। বয়স ৬৬ বছর। অনেকের কাছে রেডিও আলতাফ নামে পরিচিত। তার বাড়ি সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলার সলঙ্গা থানার রামকৃষ্ণপুর ইউনিয়নের রহিমাবাদ গ্রামে। আলতাফ হোসেনের বাবা দেলোয়ার হোসেন ১৯৬৫ সালে ৫ বিঘা জমি বিক্রি করে জাপানি ব্র্যান্ডের একটি রেডিও কিনে সে সময় এলাকায় ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি করেছিলেন। তখনকার সময়ে আশপাশের ১০-১২ গ্রামের মধ্যে এটিই ছিল একমাত্র খবর শোনা ও বিনোদনের মাধ্যম। বাবার ওই পুরোনো দিনের রেডিওটি আজও অতিযত্নে আগলে রেখেছেন আলতাফ।

তার বাড়িতে গেলে আলতাফ হোসেন পুরোনো দিনের সেই রেডিও পরিষ্কার করে ঘটনার বিস্তারিত বলেন। তিনি বলেন, বাবার রেখে যাওয়া পুরোনো দিনের রেডিওটি প্রতিদিন বের করে পরিষ্কার করি। পরিষ্কার শেষ হলে যত্নসহকারে কাপড় দিয়ে মুড়িয়ে বাক্সে রেখে দেই।

তিনি জানান, বাবা দেলোয়ার হোসেন ১৯৬৫ সালে ৫ বিঘা জমি বিক্রি করে এই রেডিওটি কিনেছিলেন। সেই সময় প্রতি বিঘা ৫০ টাকা করে ৫ বিঘা জমি ২৫০ টাকায় বিক্রি করে পাবনা থেকে জাপানি তিন ব্র্যান্ডের একটি রেডিও কিনে আনেন। সেই সময় দেলোয়ার হোসেনের এই রেডিও শুনতে দূর-দূরান্ত থেকে মানুষ আসত তার বাড়িতে।

এরপর ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় গ্রামের মানুষ যুদ্ধের সব খবর শুনতেন এই রেডিওর মাধ্যমে। আর এই রেডিওর মাধ্যমে যুদ্ধের খবর সবার মধ্যে ছড়িয়ে দেওয়ার কারণে পাকবাহিনী তাকে নির্যাতন করে তার বাড়ি আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দিয়েছিল। তারপরও এই রেডিওর প্রতি অন্যরকম ভালোবাসা ছিল বাবার (দেলোয়ার হোসেন)। বিশেষ করে সেই সময় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাষণ শোনা ও বঙ্গবন্ধুর বিভিন্ন খোঁজখবর রাখতেন এই রেডিওর মাধ্যমে। খবর শোনার প্রবল আগ্রহ ছিল বাবার। রেডিওটি সচল রাখতে ব্যাটারি কেনার টাকা না থাকায় পরবর্তীতে বেশকিছু জমি বিক্রি করে দিয়েছিলেন তিনি।

এরপর ১৯৭৫ সালে অর্থের অভাবে গ্রামের এক ব্যক্তির কাছে শখের রেডিওটি বন্ধক রেখে মারা যান বাবা।

মৃত্যুর পর তার বড় ছেলে আলতাফ হোসেন ২০২২ সালে বন্ধক রাখা সেই রেডিওটি ফিরিয়ে আনেন। সেই থেকে বাবার শেষ স্মৃতি শখের রেডিওটি আগলে রেখেছেন তিনি। ৪৮ বছর পর বাবার রেডিওটি হাতে পেয়ে খুশি ছেলে আলতাফ। আধুনিক সভ্যতার যুগে রেডিওর কদর না থাকলেও আলতাফ তার বাবার রেডিওটি নিয়ে এখনো ঘুরে বেড়ান। এ জন্য গ্রামে তিনি এখন রেডিও আলতাফ নামে পরিচিত।

সিরাজগঞ্জের সলঙ্গা থানার রামকৃষ্ণপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম হিরো জানান, জমি বিক্রি করে রেডিও কেনার ঘটনাটি সত্য। তার বাবা দেলোয়ার হোসেন সব জমি বিক্রি করে গেছেন। তার ছেলেদের আর কিছু নেই। তবে আলতাফ হোসেন সাদা মনের মানুষ। সবাই তাকে ভালোবাসেন। তার স্ত্রী চায়না খাতুন আমার পরিষদের সংরক্ষিত আসনের সদস্য। বাবার পাঁচ বিঘা জমি বিক্রি করে কেনা রেডিওটি ছেলে আলতাফ এখনো যত্ম করেন।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের দুই প্রকৌশলীর আর্থিক লেনদেনের ভিডিও ভাইরাল

কামাল লোহানীর পঞ্চম প্রয়াণ দিবসে উদীচীর স্মরণ সভা

রাসেলস ভাইপার মারলেই ৫০ হাজার টাকা পুরস্কার

ভিজিএফের চাল আত্মসাতের অভিযোগে আ.লীগ নেতার বিরুদ্ধে মামলা

নারী নির্যাতন মামলায় চেয়ারম্যান কারাগারে

ডেনমার্কের বিরুদ্ধে ইংল্যান্ডের হতাশার ড্র

বাংলাদেশের সব অর্জন আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে : পলক

আফগানদের হারিয়ে সুপার এইটে শুভ সূচনা ভারতের

চুরি করতে গিয়ে ছাত্রলীগ নেতা ধরা

মজুদদারদের বিরুদ্ধে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের বিধান রেখে নতুন আইন হচ্ছে : খাদ্যমন্ত্রী

১০

ডিমলায় বুড়ি তিস্তা নদীর বাঁধে ভাঙন, পানিবন্দি ২ শতাধিক পরিবার

১১

রাসেল ভাইপার নিয়ে ফেসবুকে ভুয়া পোস্ট ভাইরাল, জনমনে আতঙ্ক

১২

ঈদের ছুটিতে ছিলেন অফিসে, মিলল লাশ

১৩

ল্যাবএইডে দিনে ৭০টির বেশি এন্ডোসকপি, অস্বাভাবিক বলছেন বিশেষজ্ঞরা

১৪

প্রকাশ্যে মদ খেয়ে মাতলামি, জেলে গেলেন যুবক

১৫

ওসির কেরামতিতে মায়ের কোলে ‍ফিরল শিশু

১৬

পৃথিবীর সবচেয়ে ভয়ংকর ১০ সাপ, বসবাস যেসব এলাকায়

১৭

বন্যায় ঈদ আসেনি সিলেটের নিম্নাঞ্চলে

১৮

সূর্যকুমারের ফিফটিতে ভারতের চ্যালেঞ্জিং সংগ্রহ

১৯

ছয় গুণ বাড়তে পারে মানিকখালী ব্রিজের টোল

২০
X