সিলেট ব্যুরো
প্রকাশ : ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১০:৩৯ পিএম
অনলাইন সংস্করণ

হারিছ চৌধুরীর মেয়েকে হত্যার হুমকি, চাচাতো ভাইয়ের জিডি

হারিছ চৌধুরীর মেয়েকে হত্যার হুমকি, চাচাতো ভাইয়ের জিডি

সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক সচিব, সিলেটের আলোচিত ও বিতর্কিত রাজনীতিবিদ হারিছ চৌধুরীর মেয়ে সামিরা তানজিন চৌধুরীকে ‘গলা টিপে হত্যার’ হুমকি দিয়েছেন তারই চাচা (বাবার চাচাতো ভাই) আশিক চৌধুরী। এ অভিযোগে সামিরার চাচাতো ভাই রাহাত চৌধুরী (২৩) ঘটনার এক মাস ৫ দিন পর অনলাইনে সিলেটের কানাইঘাট থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন। রাহাত হারিছ চৌধুরীর আপন ভাতিজা।

এর আগে রাহাত চৌধুরী গত ২৩ জানুয়ারি কানাইঘাট থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন। তবে সেটি কী অবস্থায় আছে, তিনি জানেন না। পরে একাধিকবার ডায়েরি করার জন্য থানায় গেলেও নানা বাধায় করতে পারেননি বলে রাহাতের অভিযোগ। অবশেষে গতকাল সোমবার অনলাইনে জিডি করেছেন।

কী বলা হয়েছে জিডিতে

হারিছ চৌধুরীর চাচাতো ভাই ও কানাইঘাট উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা আশিক চৌধুরী গত ১৭ জানুয়ারি উপজেলার দীঘিরপাড় ইউনিয়নের রামধন গ্রামে হারিছ চৌধুরীর বাবার নামে প্রতিষ্ঠিত শফিকুল হক চৌধুরী মেমোরিয়াল এতিমখানায় শীতবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে নানা বিষয়ে দীর্ঘ বক্তব্য দেন। বক্তব্যের একপর্যায়ে ক্ষুব্ধ হয়ে তিনি হারিছ চৌধুরীর মেয়েকে ‘গলা টিপে হত্যা’র কথা বলেন।

ওই সময় হারিছ চৌধুরীর পরিবারের অন্য সদস্যদের নিয়েও বিষোদ্গার করেন তিনি। এ ছাড়া হারিছ চৌধুরী ও তার অন্যান্য ভাইয়ের পরিবারের সদস্যদের ওই এতিমখানায় ঢুকতে নিষেধ করেন এবং ঢুকলে মারধর করবেন বলে হুমকি দেন।

ওই অনুষ্ঠানের পরই তার এমন বক্তব্যের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগের বিভিন্ন মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। বিষয়টি সিলেটসহ সারা দেশে তোলপাড় সৃষ্টি হয়। পরে আশিক চৌধুরীর বিরুদ্ধে রাহাত চৌধুরী ২৩ জানুয়ারি কানাইঘাট থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন। কিন্তু অজ্ঞাত কারণে অভিযোগটি তদন্ত করা হচ্ছে না বলে রাহাত চৌধুরীর অভিযোগ।

যা বলছেন রাহাত

তিনি আজ মঙ্গলবার গণমাধ্যমের কাছে অভিযোগ করে বলেন, “২৩ জানুয়ারির পর আমি একাধিকবার কানাইঘাট থানায় উপস্থিত হয়ে জিডি করার চেষ্টা করি। কিন্তু পুলিশের পক্ষ থেকে ‘বিষয়টি পারিবারিকভাবে শেষ করুন’ বলে বিদায় করে দেওয়া হয়। অবশেষে বাধ্য হয়ে ২০ ফেব্রুয়ারি আমি অনলাইনে জিডির আবেদন করি।”

কী বলছে পুলিশ

রাহাতের অভিযোগের বিষয়ে কানাইঘাট থানার ওসি গোলাম দস্তগীর কালবেলাকে জানান, অভিযোগটি ভিত্তিহীন।

গত বছরের ১১ জানুয়ারি রাতে ফেসবুকে ‘হারিছ চৌধুরীর মৃত্যু’র খবর জানিয়ে একটি স্ট্যাটাস দিয়ে আলোচনায় আসেন তার চাচাতো ভাই আশিক চৌধুরী। তখন তিনি ফেসবুকে লিখেছিলেন, ২০২১ সালের সেপ্টেম্বরে করোনায় আক্রান্ত হয়ে হারিছ চৌধুরী মারা গেছেন।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

চাঁদপুরে নদী ভাঙ্গনে দিশেহারা জালিয়ার চরবাসী

রেললাইনে পানি ওঠায় ট্রেনের গতি কমানোর নির্দেশ

ধর্ষণ মামলায় রায়হান গ্রেপ্তার

ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন ইতালিকে হারিয়ে শেষ ষোলোতে স্পেন

নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের দুই প্রকৌশলীর আর্থিক লেনদেনের ভিডিও ভাইরাল

কামাল লোহানীর পঞ্চম প্রয়াণ দিবসে উদীচীর স্মরণ সভা

রাসেলস ভাইপার মারলেই ৫০ হাজার টাকা পুরস্কার

ভিজিএফের চাল আত্মসাতের অভিযোগে আ.লীগ নেতার বিরুদ্ধে মামলা

নারী নির্যাতন মামলায় চেয়ারম্যান কারাগারে

ডেনমার্কের বিরুদ্ধে ইংল্যান্ডের হতাশার ড্র

১০

বাংলাদেশের সব অর্জন আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে : পলক

১১

আফগানদের হারিয়ে সুপার এইটে শুভ সূচনা ভারতের

১২

চুরি করতে গিয়ে ছাত্রলীগ নেতা ধরা

১৩

মজুদদারদের বিরুদ্ধে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের বিধান রেখে নতুন আইন হচ্ছে : খাদ্যমন্ত্রী

১৪

ডিমলায় বুড়ি তিস্তা নদীর বাঁধে ভাঙন, পানিবন্দি ২ শতাধিক পরিবার

১৫

রাসেল ভাইপার নিয়ে ফেসবুকে ভুয়া পোস্ট ভাইরাল, জনমনে আতঙ্ক

১৬

ঈদের ছুটিতে ছিলেন অফিসে, মিলল লাশ

১৭

ল্যাবএইডে দিনে ৭০টির বেশি এন্ডোসকপি, অস্বাভাবিক বলছেন বিশেষজ্ঞরা

১৮

প্রকাশ্যে মদ খেয়ে মাতলামি, জেলে গেলেন যুবক

১৯

ওসির কেরামতিতে মায়ের কোলে ‍ফিরল শিশু

২০
X